Breaking News

সপ্তম শ্রেণির এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহ ইংরেজি-কৃষি ও গার্হস্থ্য

সপ্তম শ্রেণির এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহ ইংরেজি-কৃষি ও গার্হস্থ্য

সপ্তম শ্রেণির এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহ ইংরেজি-কৃষি ও গার্হস্থ্য: ২০২১ সালের ৬ষ্ঠ সপ্তাহের সপ্তম শ্রেণির এসাইনমেন্ট প্রশ্ন বা নির্ধারিত কাজ প্রকাশিত হয়েছে ৭ জুন ২০২১। মাধ্যমিক স্কুলের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ৬ষ্ঠ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সম্পন্ন করে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের নিকট জমা দিতে হবে। ৭ম শ্রেণির সব এসাইনমেন্টের উত্তর এখানে প্রকাশ করা হয়েছে।

সপ্তম শ্রেণির এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহ ইংরেজি-কৃষি ও গার্হস্থ্য (3)

সপ্তম শ্রেণির বাংলা এসাইনমেন্ট উত্তর (৫ম সপ্তাহ)

সপ্তম শ্রেণির বাংলা এসাইনমেন্ট উত্তর (৫ম সপ্তাহ)

অধ্যায় ও অধ্যায়ের শিরোনাম – পদ্য বা কবিতা
পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত পাঠ নম্বর ও বিষয়বস্তু পাঠ নম্বর- কুলি মুজুর, কবি- কাজী নজরুল ইসলাম
এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ-একটি কর্মপত্র তৈরি করণ: নিচের ছকটি তুলে পূরণ কর

ক্রম শ্রমজীবীর নাম সমাজে তাদের অবদান-তাদের কিভাবে মূল্যায়ন করবো
১ – কুলি
২ – রাজমিস্ত্রি
৩-  কামার
৪-  মুচি

উত্তর — আজকের আধুনিক সভ্যতার ভিত্তি হ শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের নিরলস পরিশ্রম । হাজার হাজার বছর ধরে । শ্রমজীবী মানুষের রক্ত ঘামে মানবসভ্যতার উৎকর্ষ সাধিত হয়েছে তা থেকে সেই শ্রমজীবী জনগোষ্ঠীই থেকেছে উপেক্ষিত । আজকের আধুনিক উন্নত সমৃদ্ধ পৃথিবীর কারিগর এসব অবহেলিত, নির্যাতিত, নিপীড়িত, অধিকার | বঞ্চিত শ্রমজীবী মানুষের অধিকার আদায়ে অব্যাহত রয়েছে নিরন্তর। সংগ্রাম | সময়ের পরিক্রমায় এই অধিকার শব্দটির সুদৃঢ় শক্তি সামাজিক ও রাজনৈতিক চিন্তা চেতনা, ধ্যান-ধারণা এবং দর্শনকে প্রভাবিত করেছে, পরিবর্তন সাধিত করেছে।
শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলনের প্রবল পৃথিবীর দেশে দেশে অধিকার বঞ্চিত মেহনতি মানুষের মধ্যে এক নবতর জাগরণের প্রস্ফুটন ঘটায় । শ্রমজীবী মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলন সংগ্রামের পথপরিক্রমায় গতিশীল হয়েছে। মানুষের মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় গণতান্ত্রিক আদর্শের অগ্রযাত্রী ।

সমাজে শ্রমজীবী মানুষের অবদান এবং তাদের কীভাবে মূল্যায়ন করবাে তা নিচের ছকে উপস্থাপন করা হলাে :

১. কুলি-

কুলিরা রেলস্টেশনে যাত্রীদের মালামাল নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছে দেয়।
কুলিরা বাস স্টেশন কিংবা নাঘোটে যাত্রী কিংবা পরিবহন মামগ্রী উঠা নামানাের কাজ করে থাকে
বিভিন্ন বাণিজ্যিক পণ্য পরিবহনের কাজও কুলিরা থাকেন ।
এছাড়াও তাদেরকে ভূ-গর্ভস্থ বিভিন্ন খনি হতে মালামাল উঠানোর কাজ করতে দেখা যায় ।

২. রাজমিস্ত্রি-

রাজমিস্ত্রি ইট, সিমেন্ট, বালু, লােহার রড ইত্যাদি দিয়ে ঘর বাড়ি তৈরি করেন ।
একজন রাজমিস্ত্রি কোন নির্মাণ কাজের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তার সহযোগীদের সাথে মিলে সম্পন্ন করেন।
পাইলিং, ভবনের অবকাঠামো দাঁড় করানো, ছাদ ঢালাই, প্লাম্বিংসহ কোন অবকাঠামোর অধিকাংশ কাজ একজন রাজমিস্ত্রি করে থাকেন।
তাছাড়াও কার্লভাট তৈরি থেকে শুরু করে সীমানা প্রাচীর তৈরি,গুদাম ঘর তৈরি প্রভৃতি কাজ রাজমিস্ত্রি করে থাকেন

৩. কামার-

কামার একটি প্রাচীন পেশা যার কাজ লাহোর জিনিসপত্র তৈরি করা ।
গৃহস্থালি এবং কৃষিকাজে ব্যবহৃত অধিকাংশ লেহজাত যন্ত্রপাতি কামাররা প্রস্তুত করেন । এগুলাের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে দা, বটি, শাবল, কুড়াল, ছুরি ইত্যাদি ।তাছাড়াও কোরবানি ঈদে ব্যবহৃত দা ছুরি তৈরি এবং তাতে শাণ দেওয়া কামাররাই করে থাকেন ।

৪. মুচি-

মুচি জুতা তৈরি এবং জুতা মেরামতের কাজ করেন ।
ত্রুটিযুক্ত এবং পুরনো জুতা, মেন্ডেল মেরামত করে আবার রং মাখিয়ে পুরাতন জুতায় চাকচিক্য সৃষ্টি করার কাজও করে থাকেন ।
মুচির চামার কর্তৃক সংগৃহীত চামড়া ব্যবহার উপযোগী করে তোলেন অথবা বিক্রির জন্য ট্যানারিতে নিয়ে যান।
আমাদের সমাজে শ্রমজীবি মানুষদের যেভাবে মূল্যায়ন করবো :

১. কুলি-
আবহমান কাল থেকে সারা বিশ্বের সব সৃষ্টির নির্মাতা হলাে শ্রমিক, কর্মচারী ও মেহনতি মানুষ। যুগ যুগ ধরে কুলি – মজুরের মত লক্ষ কোটি শ্রমজীবী মানুষের হাত ধরে গড়ে উঠেছে মানব সভ্যতা । কুলি তিনি যিনি তার অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে আয় করছেন । শ্রদ্ধার সাথে, বিনম্রতার সাথে, নিজ নিজ দেশের প্রগতির জন্য কাজ করে যাচ্ছেন । তারাই আমাদের ভারী মালামাল ও পণ্যসমূহ এক স্থান হতে অন্য স্থানে পরিবহন করে।

তাদের শ্রম দিয়ে আমাদের অর্থনীতির বুনিয়াদ সৃষ্টি করছি। কিন্তু ধীরে ধীরে শ্রমিক শব্দটিকেও আমরা নিম্নপর্যায়ের নিহিত অর্থে নিয়ে। গেছি। আধুনিক যুগের ক্রীতদাস পর্যায়ে বছরের পর বছর বিভিন্ন স্টেশনে আমাদের লাগেজের ভার বহন করে নিয়ে গিয়েছে এরী । কুলি মজুরদের শ্রম ছাড়া কোন কিছুই উৎপাদিত হতে পারে না । দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে শ্রমজীবী মানুষের মেধা ও পরিশ্রমের অবদান ছাড়া কিছুই করা সম্ভব নয় । কুলি মজুর দের আমরা কখনো ছোট চোখে দেখবো না । কারণ আমাদের প্রয়োজনে তারাই কিন্তু এগিয়ে আসেন । তারা না থাকলে আমাদের ভারি ভারি মালামালগুলো কে পৌঁছে দিত?

২. রাজমিস্ত্রি
বিশ্বে মানবসভ্যতা গড়ে উঠেছে মানুষের শ্রমের বিনিময়ে।একটি দেশের উন্নয়নের অন্তরালে থাকে শ্রমিক মজুরদের অক্লান্ত পরিশ্রম , ব্যথা বেদনা । কিন্তু সে অনুযায়ী শ্রমিকদের সুযোগ সুবিধা বাড়ছে না।যাদের ঘামে একটি একটি ইট সাজিয়ে বড়ো ইমারত সদৃশ দেশ এগিয়ে যাচ্ছে তাদের যথাযথ সম্মান দেওয়া আবশ্যক। তাদের তৈরী করা ঘরেই আমরা শান্তিতে ঘুমাতে পারছি। এ সকল শ্রমজীবী মেহনতি মানুষ হচ্ছে উৎপাদন, শিল্পাউন্নয়ন ,তথা অর্থনৈতিক উন্নয়নের অপরিহার্য উপাদান, যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের মধ্যে নিহিত থাকে দেশের সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ। আমাদের চারপাশে এত সুন্দর সুন্দর দালান কোঠা সৃষ্টি হয়েছে শুধুমাত্র এই রাজমিস্ত্রিদের কল্যানেই। তাদের হাতের পরশে গড়ে উঠেছে এত সুন্দর সুন্দর ইমারত । তাই আমাদের উচিত তাদেরকে সম্মান দেওয়া, তাদের এই কাজটাকে আরো বেশি সম্মান দেওয়া এবং তাদেরকে ছোট চোখে না দেখা ।

৩. কামার –
বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ। তাদের কায়িক শ্রমে তৈরি হয় কৃষি ও শিল্প কারখানার নানান সামগ্রী ।
সভ্যতা বিনির্মাণের কারিগর এ শ্রমজীবী মানুষরা সর্বদাই অবহেলিত উপেক্ষিত । কাজেই শ্রমিকদের যথাযথ মজুরি , কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা ও তাদের মৈালিক চাহিদাগুলো অবশ্যই আমাদের নিশ্চিত করতে হবে এবং আমাদের উচিত তাদেরকে সম্মানের দৃষ্টিতে দেখা । কামার আছে বলেই কিন্তু আজ আমরা লোহার জিনিস পত্রগুলো ব্যবহার করতে পারছি। তারা না থাকলে হয়তো আজ আমরা লোহার জিনিসপত্রগুলো আর ব্যবহার করতে পারতাম না । সমাজে একজন সাধারন মানুষের মত কামারদেরও যথেষ্ট অবদান রয়েছে। তাই তাদেরকে কখনোই ছোট করে দেখা উচিত নয় ।

৪. মুচি-
যাদের ত্যাগে আমরা সভ্য সমাজে মর্যাদা নিয়ে পথ চলতে পারি মুচি সম্প্রদায় তাদের মধ্যে অন্যতম । কিন্তু আমাদের সমাজ এ মুচি শব্দটিকে খুবই অসম্মানজনক মনে করা হয় । অর্থনৈতিক বা সামাজিক প্রেক্ষাপট যা -ই থাকুক , মুচির পেশায় নিয়ােজিত ব্যক্তির এখনও নীচুশ্রেণির মানুষ বলেই গণ্য। আমাদের মর্যাদা বাড়াতে যাঁরা রাস্তায় বসে জীবন কাটিয়ে দেন সেই সব শ্রমজীবী দলিত পরিবারগুলোকে নিচু চোখে দেখে আলাদা করে রাখি আমরা। আমাদের উচিত সৎ, । পরিশ্রমী ও সংগ্রামী মানুষ হিসেবে মুচিকে সম্মানের চোখে দেখা । শ্রমজীবী মেহনতি মানুষ হচ্ছে উৎপাদন, শিল্পােন্নয়ন, তথা অর্থনৈতিক উন্নয়নের অপরিহার্য উপাদান, যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের মধ্যে নিহিত থাকে দেশের সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ। আমাদের সমাজে সকল ধরনের শ্রমজীবী মানুষের অনেক অবদান রয়েছে। আমরা কোনোভাবেই তাদের এ অবদানকে অস্বীকার করতে পারব না।

তাই আমরা সকল পেশার মানুষকে সম্মান করব, সুস্থ সুন্দর দেশ গড়বো । সেক্ষেত্রে আজকের দিনে আমাদের অঙ্গীকার হতে হবে সব শ্রমজীবী মানুষের অধিকার হোক সুপ্রতিষ্ঠিত এবং পৃথিবী হোক শান্তিময় ।

সপ্তম শ্রেণির জীবন ও কর্মমূখী শিক্ষা এসাইনমেন্ট উত্তর -(৫ম সপ্তাহ)

সপ্তম শ্রেণির এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহ ইংরেজি-কৃষি ও গার্হস্থ্য: ২০২১ সালের ৬ষ্ঠ সপ্তাহের সপ্তম শ্রেণির এসাইনমেন্ট প্রশ্ন বা নির্ধারিত কাজ প্রকাশিত হয়েছে ৭ জুন ২০২১। মাধ্যমিক স্কুলের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ৬ষ্ঠ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সম্পন্ন করে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের নিকট জমা দিতে হবে। ৭ম শ্রেণির সব এসাইনমেন্টের উত্তর এখানে প্রকাশ করা হয়েছে।

উত্তর : পরিশ্রম সাফল্যের চাবিকাঠি। পরিশ্রম ছাড়া জীবনে কেউ উন্নতি করতে পারে না। সাধারণত আমরা জানি শ্ৰম হলো দুপ্রকার দৈহিক বা কায়িক,শ্রম ও মানসিক শ্রম।শরীবে খেটে যে শ্রম করা হয় তাকে দৈহিক বা কায়িক শ্রম বলে। আর যে শ্রমে বৃদ্ধিমত্তা তথা জ্ঞান খরচ করা হয় তাকে মানসিক শ্রম বলে। মানব জীবনে উভয় শ্রমই মূল্যবান এ পৃথিবীতে যাবা প্রতিষ্ঠা লাভ করেছ্‌নে, সবাই অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমেই করেছেন। শ্রমহীন, অলস জীবন পঙ্গু জীবনের অন্তর্ভুক্ত। পৃথিবী বেঁছে থাকতে হলে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমেই বেঁচে থাকতে হয়। আধুনিক বিশ্বে যত বিস্ময়কর আবিস্কার রয়েছে তার সবই নিরলস শ্রমের ফসল। শ্রমহীন জীবন মানে হতাশার কাফন জড়ান্মে এক জীবন্তু লাশ। শ্রমুবিমুখ মানুষ দেশ ও জাতির জন্য বোঝা। অপরিশ্রমী মানুষ জীবনে উন্নতি ও সাফল্য অর্জন করতে পাবে না। সকল উন্নতির মূলে আছে শ্রম।
পৃথিবীর জ্ঞানী ব্যক্তিদের আচরণ এবং উপদেশ পর্যালােচনা করলে দেখা যায়, তারা কোনো কাজকেই ছোট করে দেখেননি। কোনো শ্রমকেই তারা মর্যাদা হানিকর বলে মনে করেন না। তাদের কাছে ছোট বড় কাজ বলে কিছু নেই। সকল কাজের প্রতিই তারা সমভাবে শ্রদ্ধাশীল। সে কারণেই তারা উন্নতির চরম শিখরে পৌছে গেছেন। একথা সত্য, পৃথিবীর যে জাতি শ্রমের প্রতি যত শ্রদ্ধাশীল, সে জাতি তত উন্নত ও সম্পদশালী। তাই মানব জীবনে শ্রমের গুরুত্ব অপরিসীম | শ্রম বিমুখের কারণেই আমরা আমাদের জাতীয় উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে দিন দিন পিছিয়ে যাচ্ছি। আমাদের দেশের জনসংখ্যাকে জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে হলে তাদের জন্য শ্রমের ক্ষেত্র গড়ে তুলতে হবে। কঠোর পরিশ্রমে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। শ্রমের যথাযথ মূল্যায়ন করতে হবে। জনগণকে পরিশ্রমী করে তুলতে পারলে জাতীয় উন্নতি ত্বরান্বিত হবে। সকল অভাব অনটনের অবসান ঘটায়। সভ্যতার বিকাশে কায়িক , ও মেধা শ্রম উভয়ই গুরুত্বপূর্ণ।

অবৈধ মুঠোফোন বন্ধের ব্যবস্থা চালু জুলাই থেকে: বিটিআরসি

অবৈধ মুঠোফোন বন্ধের ব্যবস্থা চালু জুলাই থেকে: বিটিআরসি

অবৈধ মুঠোফোন বন্ধের ব্যবস্থা চালু ১ জুলাই থেকে:দেশে আগামী ১ জুলাই থেকে অবৈধ মুঠোফোন বন্ধের প্রযুক্তি চালু হবে। ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেনটিটি রেজিস্ট্রার (এনইআইআর) নামের এ ব্যবস্থায় অবৈধভাবে আমদানি করা মুঠোফোন চালু করা যাবে না। তবে গ্রাহকের হাতে থাকা অবৈধ মুঠোফোনকে সময় দেবে বিটিআরসি।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের বিটিআরসি চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার আজ মঙ্গলবার প্রথম আলোকে বলেন, এনইআইআর ব্যবস্থা ১ জুলাই থেকে চালুর প্রস্তুতি নিয়ে এগোচ্ছি আমরা। রাজস্ব ফাঁকি রোধ ও অবৈধ মুঠোফোন ব্যবহার করে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ প্রতিরোধে এ ব্যবস্থা চালু হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আমরা ব্যবস্থাটি চালু করব এমনভাবে যাতে গ্রাহকের ওপর চাপ না পড়ে।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান আরও বলেন– মানুষ বিদেশ থেকে কিনে বা উপহার হিসেবে অথবা উপহার দিতে মুঠোফোন আনতে পারবে তবে বেশি পরিমাণে আনলে সরকারকে কর দিতে হবে।

বিটিআরসি মুঠোফোন বৈধ না অবৈধ– তা যাচাই করতে এনইআইআর নামের এ ব্যবস্থা চালু ও পরিচালনার জন্য দরপত্র আহ্বান করে গত বছর ফেব্রুয়ারিতে। প্রযুক্তিগত সমাধান পেতে সংস্থাটি সিনেসিস আইটি নামের একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে গত নভেম্বরে চুক্তি করে।

এনইআইআর ব্যবস্থার মাধ্যমে দেশে বৈধভাবে আমদানি ও উৎপাদিত মুঠোফোনের তথ্যভান্ডারের সঙ্গে মোবাইল নেটওয়ার্কে চালু হওয়া ফোনের আইএমইআই মিলিয়ে দেখা হবে। অবৈধ, চুরি যাওয়া ও নকল মুঠোফোন দেশের মোবাইল নেটওয়ার্কে চালু করা যাবে না।

আমরা ব্যবস্থাটি চালু করব এমনভাবে যাতে গ্রাহকের ওপর চাপ না পড়ে।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের মতে- দেশে ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ স্মার্টফোন অবৈধভাবে আমদানি করা হয়। এ কারণে ১ হাজার থেকে ১ হাজার ২০০ কোটি টাকার রাজস্ব হারায় সরকার।

বাংলাদেশ মোবাইল ফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন-সাধারণ মানুষ জানে না কোনটা বৈধ, কোনটা অবৈধ ফোন, কীভাবে যাচাই করতে হয়। এ বিষয়ে বিটিআরসিকে প্রচার-প্রচারণা চালাতে হবে।

তিনি বলেন- একটি মুঠোফোন আমদানিতে ৫৭ শতাংশ কর দিতে হয়। দেশে উৎপাদিত হলেও মুঠোফোনের দাম তেমন একটা কমেনি। এ কারণে মোট গ্রাহকের মাত্র ৪০ শতাংশ এখন স্মার্টফোন ব্যবহার করতে পারে। মুঠোফোন সেটের দাম যাতে মানুষের নাগালে আনা যায়, সেটা নিয়েও সরকারকে কাজ করতে হবে।

মুঠোফোন অপারেটরদের বৈশ্বিক সংগঠন জিএসএমএ গত মার্চে (মোবাইলনির্ভর ডিজিটাল অন্তর্ভুক্তি শীর্ষক) এক প্রতিবেদনে জানায়, বাংলাদেশে মুঠোফোন ব্যবহারকারী ৪১ শতাংশের মুঠোয় আছে স্মার্টফোন। এ হার ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, এমনকি নেপালের চেয়েও কম। বাংলাদেশের পিছিয়ে থাকার কারণ স্মার্টফোনে উচ্চ হারে কর।

অবৈধ মুঠোফোন নিয়ে প্রশ্ন/উত্তর:
বিটিআরসির কর্মকর্তারা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অবৈধ মুঠোফোন বন্ধের বিষয়ে প্রশ্নের উত্তর দেন।

পাঠকের জন্য সেই প্রশ্ন/উত্তর:

১. মুঠোফোনে খুদে বার্তার এসএমএস মাধ্যমে অনেক সময় আইএমইআই সংশ্লিষ্ট তথ্য পাওয়া যায় না, এ বিষয়ে করণীয় কী?

যেসব মুঠোফোন অবৈধভাবে আমদানি করা হয়েছে এবং যেগুলোর আইএমইআই নম্বর বিটিআরসির তালিকাভুক্ত আমদানিকারক ও প্রস্তুতকারক সংযোজন করেননি- সেগুলোর আইএমইআই নম্বর এ তথ্যভান্ডার থেকে পাওয়া সম্ভব নয়। এ ছাড়া ২০১৯ সালের ১ আগস্ট তথ্যভান্ডার চালু হয়। আগের মুঠোফোনের আইএমইআই নম্বর তথ্যভান্ডারে নেই।

সাধারণ মানুষ জানে না কোনটা বৈধ, কোনটা অবৈধ ফোন, কীভাবে যাচাই করতে হয়। এ বিষয়ে বিটিআরসিকে প্রচার-প্রচারণা চালাতে হবে।
মহিউদ্দিন আহমেদ- বাংলাদেশ মোবাইল ফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এনইআইআর সিস্টেমটি কীভাবে পরিচালিত হবে।

এনইআইআর সিস্টেমটি সরাসরি প্রত্যেক মুঠোফোন অপারেটরের নিজ নিজ এনআইআরের সঙ্গে সংযুক্ত থাকবে। গ্রাহকদের মুঠোফোন স্বয়ংক্রিয়ভাবে মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে নিবন্ধিত হয়ে ব্যবহারের উপযোগী হবে। এনইআইআর সব মুঠোফোনের বৈধতা যাচাইয়ের মাধ্যমে বৈধ না অবৈধ তা তাৎক্ষণিক চিহ্নিত করবে। ফোন কেনার পর সর্বোচ্চ ৩০ মিনিট লাগতে পারে।

বাজারে আগে যে মুঠোফোন রয়েছে বা সাধারণ গ্রাহক যে সেটগুলো ব্যবহার করছেন, এনইআইআর সিস্টেম চালু হলে সেগুলোর ভবিষ্যৎ কী হবে?

২০১৯ সালের ১ আগস্টের আগে মোবাইল অপারেটরের নেটওয়ার্কে ব্যবহৃত এবং ওই সময়ের পরে বৈধ পথে আমদানি অথবা দেশে উৎপাদিত মুঠোফোনের তথ্য বিটিআরসির কাছে সংরক্ষিত রয়েছে। এর বাইরে কোনো অবৈধ মুঠোফোন থাকলে কমিশন ধাপে ধাপে সেগুলো বন্ধের ব্যবস্থা নেবে। এখন পর্যন্ত কমিশনের চিন্তা হলো, সেটগুলোকে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ব্যবহারের সুযোগ দেওয়া।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের মতে, দেশে ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ স্মার্টফোন অবৈধভাবে আমদানি করা হয়। এ কারণে ১ হাজার থেকে ১ হাজার ২০০ কোটি টাকার রাজস্ব হারায় সরকার।
২. বিদেশ থেকে ব্যক্তিগতভাবে নিয়ে আসা, কারও উপহার বা অনলাইনে কেনা মুঠোফোনের ক্ষেত্রে কী হবে?

এনইআইআর ওয়েবসাইটের মাধ্যমে গ্রাহকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মুঠোফোন কেনার রসিদ যাচাই করে নিবন্ধন দেওয়া হবে। বিদেশ থেকে উপহার পাওয়ার ক্ষেত্রে যথেষ্ট প্রমাণ দেখাতে হবে। একই ব্যক্তি বারবার উপহার দিচ্ছেন, তা দেখানো যাবে না।

৩. দেশে এখন ব্যবহৃত হওয়া একই আইএমইআই নম্বরের নকল মুঠোফোনের ক্ষেত্রে কী হবে?

এসব ফোন তালিকা করে তাদের একটি নির্দিষ্ট সময় দেওয়া হবে। পরে তা বন্ধ করে দেওয়ার চিন্তা রয়েছে।

৪. মুঠোফোন বৈধ না অবৈধ তা যাচাইয়ের পদ্ধতি কী?

মুঠোফোনের বৈধতা যাচাইয়ের পদ্ধতি হলো মুঠোফোনের মেসেজ অপশনে গিয়ে স্পেস ১৫ ডিজিটের আইএমইআই নম্বর লিখে১৬০০২ নম্বরে পাঠাতে হবে। ফিরতি মেসেজ বা খুদে বার্তায় বৈধ না অবৈধ তা জানা যাবে। মুঠোফোনের মোড়কে স্টিকারে আইএমইআই নম্বরটি থাকে। এর বাইরে *#০৬# ডায়াল করে আইএমইআই নম্বর জানা যায়।

গুগল প্লেস্টোর কাজ না করলে কী করবেন?

গুগল প্লেস্টোর কাজ না করলে কী করবেন?

গুগল প্লেস্টোর কাজ না করলে: অ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্টফোনের বিভিন্ন অ্যাপ রাখা এবং নামানোর জন্য গুগল প্লেস্টোর ব্যবহার করতে হয় সময় অন্তর। অনেক সময় ফোনে গেম বা অ্যাপ নামাতে গেলে এটি হুটহাট কাজ করা বন্ধ করে ব্যবহারকারীকে বিপাকে ফেলে অনেক সময় মোইল ভেঙ্গে ফেলে। এটি বন্ধ হওয়ার অনেক কারণই থাকতে পারে সেটা জানতে হবে। তবে উল্লেখ করার মতো কিছু কারণ থাকতে পারে। এ রকম হলে নিচের নিয়মগুলো দিয়ে সমাধান করতে পারেন

ক্যাশ পরিষ্কার সহজ উপায়: প্রত্যেক স্মার্টফোনেরই আলাদা আলাদা ক্যাশ পার্টিশান থাকে। এখন আপনার ফোনের ক্যাশ যদি হয় ৩০ মেগাবাইট আর আপনি যদি ৩৫ মেগাবাইট ক্যাশের অ্যাপ নামাতে যান স্বাভাবিকভাবেই সেটি নামাতে সমস্যা করে থাকে। আর প্লেস্টোর অ্যাপে যদি আগে থেকেই ক্যাশ মেমরি ভরা বা ফুল থাকে তবে সেটিকে পরিষ্কার করে নিলেও কাজ হবে। এ জন্য ফোনের Settings থেকে Apps এ চলে যান,এখানে থাকা অ্যাপ তালিকা থেকে Google play store অ্যাপ খুঁজে নিয়ে চালু করুন। এরপর Clear Cache এ চাপ দিয়ে ক্যাশ পরিষ্কার করে নিতে হবে।

ওয়াই ফাই ব্যবহার করে: প্লেস্টোর থেকে অ্যাপ নামানোর জন্য ইন্টারনেটে ঢোকার অনুমতি পুরোপুরি না পেলেও এমন সমস্যা প্রায়ই দেখাতে পারে। তাই অ্যাপ নামানোর জন্য উচ্চগতির ইন্টারনেট বা ওয়াই ফাই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করলে এমন সমস্যা আর হবে না।

নতুন অ্যাকাউন্ট যোগ করুন: অনেক সময় প্লেস্টোরে পুরোনো জিমেইল অ্যাকাউন্ট সমস্যা করে থাকে। তাই নতুন জিমেইল অ্যাকাউন্ট যোগ করে এ থেকে সমাধান পাওয়া যেতে পারে। ফোনের Settings এ গিয়ে Accounts বিভাগ থেকে Add New Account এ ক্লিক করুন তারপর তালিকা থেকে Google থেকে New এ ক্লিক করুন।

ফোনকে কম্পিউটারে যুক্ত করে: ফোনকে ইউএসবি কেবল দিয়ে কম্পিউটারে যুক্ত করে নিন। এবার কম্পিউটারের ব্রাউজার থেকে play.google.com/store ঠিকানায় গিয়ে কাঙ্ক্ষিত অ্যাপস খুঁজে নিয়ে অ্যাপের Install বোতাম চাপুন এরপর ফোনে সেই অ্যাপটি ইনস্টল হতে থাকবে।

ডাউনলোড ম্যানেজারে সমস্যা: ফোনের ডাউনলোড ম্যানেজার নিষ্ক্রিয় থাকলে গুগল প্লেস্টোর কাজ নাও করতে পারে। এ জন্য ফোনের Settings থেকে Apps এ যান। ফোনের download manager অ্যাপে ক্লিক করে ইনফো খুলুন। Enable চেপে আবার সক্রিয় করে নিতে হবে।

আমাদের ওয়েব সাইটে বিভিন্ন ধরনের টিপস দিয়ে থাকি আরও টিপস সম্পকে জানতে এখানে ক্লিক করুন

 

Police Constable Job Circular 2021 পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ

পুলিশ কনস্টেবল (টিআরসি)পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
Police Constable Job Circular 2021 পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ :পুলিশের মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা শাখা সুত্র থেকে জানা যায়-আসছে জুন মাসেই নতুন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল টিআরসি পদে প্রায় দশ হাজার কনস্টেবল নিবে বাংলাদেশ পুশিল। এবার পুলিশ কনস্টেবল পদে আবেদনের জন্য শিক্ষাগত ও শারীরিক যোগ্যতার কিছুটার পরিবর্তন আনা হতে পারে।গত কয়েক বছর ধরে কনস্টেবল পদে আবেদনের ক্ষেত্রে প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা মানদণ্ড নূন্যতম জিপিএ ২.৫ সহ এসএসসি বা তার সমমানের পরীক্ষা উর্ত্তীণ হতে হয়।

পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ
আবেদনের যোগ্যতার মানদণ্ড কিছুটা বাড়িয়ে এসএসসি পাশ করা হতে পারে।তবে বিষয়টি এখনো বিবেচনা ধীন আছে।এবারে নিয়োগ ক্ষেত্রে উচ্চতা ও বুকের মাপের পরিবর্তন আনা হতে পারে।এতদিন পুরুষদের কনস্টেবল হওয়ার ক্ষেত্রে উচ্চতা কমপক্ষে ৫ ফুট ৬ইঞ্চি ও নারীদের জন্য ৫ ফুট ২ ইঞ্চি ছিল।

পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১

এবারে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি নারীদের উচ্চতা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি হতে পারে । আর আবেদন কারীদের বয়স হবে ১৮ থেকে ২০ বছর।সংশ্লিষ্টরা জানায়,২০২০ সালের শেষ দিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা ছিল।

পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ ২০২১

তবে করোনার প্রাদুর্ভাব এবং যোগ্যতা সংক্রান্ত কিছু মানদণ্ড নির্ধারণের কারণে অনেকদিন পিছালো।এ নিয়োগ প্রক্রিয়া জুনে শুরু হয়ে প্রায় দুই মাস চলমান থাকবে।পুলিশ সদর দপ্তর থেকে এক কর্মকর্তা জানান,নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরুর প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে ।নিয়োগবিধিতে কিছুটা সংশধন আনা হচ্ছে,তবে তা এখনো অনুমোতি হয়নি।

পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

সংশোধনী অনুমোদন ও প্রশাসনিক প্রক্রিয়ায় শেষ করে জুন মাসের মধ্যে নিয়োগ প্রক্রিয়া হবে।বর্তমান বাংলাদেশ পুলিশ প্রায় ২ লাখ ১০ হাজার এর মত ফোর্স রয়েছে বাংলাদেশে।২০২৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাছিনা ধাপে ধাপে আরো ৫০ হাজার পুলিশ সদস্য্ নিয়োগের নির্দশনা দেন

Police Constable Job Circular 2021

চাকরির খবর পেতে আমাদের পেজ টাকে লাইক দিন ক্লিক করে

বাংলাদেশ পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১

Bangladesh Police Constable Job Circular 2021:আরো চাকরির খবর জানতে আমাদের ওয়েব সাইটটি ঘুরে আসুন (Realjobresults.com) এখানে বিভিন্ন প্রকার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়্।লেখাপড়ার জন্য বিশেষ পোষ্ঠ করা হয়।রেজাল্ট জানতে চাইলে আমাদের সঙ্গে যুক্ত থাকুন

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণী)

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণী)

৪র্থ সপ্তাহের সকল শ্রেণীর এসাইনমেন্ট ২০২১ :৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট প্রতি সপ্তাহের শুরুর দুইদিন আগে মাউশির ওয়েবসাইটে (dshe.gov.bd) এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ গুলো দিয়ে দেওয়া হবে এবং সপ্তাহ শেষে শিক্ষাথীরা তাদের এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ শেষ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জমা দিয়ে (সরসিরি/অনলাইনে)নতুন এসাইনমেন্ট গ্রহণ করতে পারবে।আমাদের এসাইমেন্ট ক্যাটাগরিতে সকল পোষ্ট পাবেন আশাকরি।

  • বিষয় :     ৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট
  • শ্রেণী :    ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণী

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট প্রশ্ন ও উত্তর

বিষয়: ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ(৪র্থ সপ্তাহের জন্য) প্রেরণ সংক্রান্ত তথ্য।

উপযুক্ত বিষয়ে প্রেক্ষিতে জানানো যাচ্ছে যে,শিক্ষাথীকে শিক্ষা ব্যবস্থার সাথে সম্পৃক্ত রাখতে ২০২০ শিক্ষাবর্ষর ন্যায় ২০২১ শিক্ষাবর্ষের
এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ নির্ধারণ করা হয়।মাধ্যমিক পর্যায়ে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারণকৃত দ্বিতীয় সপ্তাহের এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ প্রেরণ করা হলো।

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট নোটিশ

এসাইনমেন্ট কার্য়ক্রম শুরু হয়েছিল : ২০ মার্চ,২০২১ সাল থেকে
পুনরায় আবারও শুরু হলো: ২৩ মে ২০২১

এমতাবস্থায়- ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ সকল শিক্ষার্থীদের অবহিত সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে।

সংযুক্তঃ এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ (৪র্থ সপ্তাহের জন্য)

৬ষ্ঠ শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট:
৬ষ্ঠ শ্রেণির সকল বিষয়ের এসাইনমেন্ট প্রশ্ন ও উত্তর বিস্তারিত ক্রমানুসারে সকল সপ্তাহের গুলো আলাদা আলাদা ভাবে লিঙ্ক দেয়া থাকবে। ৬ষ্ঠ শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিষয়গুলো হলো, চারু ও কারুকলা এবং বিজ্ঞান।

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (ষষ্ঠ শ্রেণী বাংলা)

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (ষষ্ঠ শ্রেণী) (3)

৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট:
সপ্তম শ্রেণির এসাইনমেন্ট ষষ্ঠ শ্রেণির মতো। প্রতি সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সবার আগে পেতে নিয়মিত এই পোস্টে ভিজিট করুন (projuktirdoctor.com) বিজ্ঞপ্তি এলার্ট চালু করলে সরাসরি নোটিফিকেশন পাওয়া যাবে। ৭ম শ্রেণির চতুর্থ সপ্তাহের বিষয়গুলো হলো, চারু ও কারুকলা এবং বিজ্ঞান

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (সপ্তম শ্রেণী)

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (সপ্তম শ্রেণী) (2)

অষ্টম শ্রেণির চতুর্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট:
৮ম শ্রেণির মোট ১০টি বিষয় রয়েছে। নিয়মিত সকল সপ্তাহের এসাইনমেন্ট পেতে আমাদের সাইট ভিজিট করতে করুন। ৮ম শ্রেণির চতুর্থ সপ্তাহের বিষয়গুলো হলো, চারু ও কারুকলা এবং বিজ্ঞান।

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (৮ম শ্রেণী) (5)

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (৮ম শ্রেণী)

নবম শ্রেণির চতুর্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট:

৯ম ও ১০ম শ্রেণির সর্বমোট ৩০টি বিষয় রয়েছে। এখানে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষার সকল বিষয় একসাথে দেয়া হয়েছে। সকল সপ্তাহের এসাইনমেন্ট নিচে দেওয়া হলো। বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষার বিষয়গুলো আলাদাভাবে দেওয়া হল। নবম শ্রেণির চতুর্থ সপ্তাহের বিষয়গুলো হলো, রসায়ন, বাংলা, ব্যাবসায় উদ্যোগ এবং ভূগোল ও পরিবেশ।

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (নবম শ্রেণী) (2)

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (নবম শ্রেণী) (3)

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (নবম শ্রেণী) (4)

৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট (নবম শ্রেণী)

শিক্ষার্থীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা নিম্নে উল্লেখ করা হলো:

১. শিক্ষার্থীদের শিখনফল অর্জনই মুল উদ্দেশ্য,পরবর্তী শ্রেণির পাঠ গ্রহণের ক্ষেত্রে এটি সুবিধা প্রদান করবে, তাই এটা অনুসরণ করা জরুরি তা বিবেচনা করতে হবে।।

২. মূল্যায়নের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর নিজস্বতা, ও সৃজনশীলতা যাচাই করা হবে। তাই নোট- গাইড বা অন্যের লেখা দেখে এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ জমা দিলে তা বাতিল হয়ে যাবে এবং পুনরায় সেই এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ প্রণয়ন করে জমা দিতে হবে।

৩. এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ তৈরি করতে এনসিটিবি প্রণীত ও প্রকাশিত ২০২১ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যপুস্তক ব্যবহার করলেই হবে।

৪. এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ লেখার ক্ষেত্রে যে কোনো কাগজ ব্যবহার করলেই হবে। এসাইনমেন্ট এর ১ম পৃষ্ঠায় শিক্ষার্থীর নাম, শ্রেণি, আইডি, বিষয় ও এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজের শিরোনাম স্পষ্টভাবে লিখতে হবে।

৫. এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ নিজের হাতে কাজ হতে হবে। এতে হাতের লেখার যেমন অনুশীলন হবে তেমনি বিষয়টি বুঝতেও সুবিধা।

পাখির বাসা ভাড়া নিয়ে পাচ আম বাগানের মালিকদের ইতিহাস জানুন

পাখির বাসা ভাড়া নিয়ে পাচ আম বাগানের মালিকদের ইতিহাস জানুন

পাখির বাসা ভাড়া নিয়ে পাচ আম বাগানের মালিকদের ইতিহাস জানুন রাজশাহীর বাঘা উপজেলার খোর্দ্দ বাউসা গ্রামে নগত অর্থ পেয়েছেন তারা।আম বাগানের মালিক এবং ইজারাদারদের মধ্যে ক্ষতিপুরণের টাকা ও চিঠি মঙ্গলবার বাগান মালিকদের হাতে পেয়েছেন।মঙ্গলবার ২৫ মে বেরা সারে ১১ টায় তাদের হাতে ৩ লাখ ১৩ হাজার টাকার চেক তুলে দেন উপজেলার চেয়ারম্যান লায়েব উদ্দীন।

যে বাগান মালিকরা ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন তারা হলেন,সানার উদ্দীন,মুঞ্জুরুল হক মুকুল,শাহাদত হোসেন,শফিকুল ইসলাম ও ফারুক হোসেন।
বাগান মালিক শফিকুল ইসলাম বলেন-পরিবেশ,বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রনালয় থেকে টাকা প্রদানের অনুমতির চিঠি হাতে আমরা পাই।পাখির বাসা ভাড়া নিয়ে মালিকদের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে,গত তিন বছর ধরে আমাদের আম বাগানে পাখিরা আচ্ছে।এর আগের দুই বছরের টাকা মালিকরা যদি পায়, তাহলে আমবাগানের মালিকরা খশি হত আর ক্ষতিটা অনেক পুষিয়ে আসবে।

বাগান মালিকদের জন্য সরকারি এমন প্রকল্পর কার্যকর্ম নিয়ে আমবাগানের মালিকরা সরকার কে ধন্যবাদ জানায়। আরোও বলেন-গাছগুলো যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সেইজন্য নিয়মিত পরিচর্যা দাবি বাগান মালিকদের।

সেখানে উপস্থিত ছিলেন -উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) পাপিয়া সুলতানা সবাপতিত্বে এ সময় রাজশাহী সামাজিক বন বিভাগের সহকারি বন সংরক্ষক মেহেদীজ্জামান,বণ্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণ কর্মকর্তা রাহাত হোসেন,বাঘা উপজেলার বন কর্মকর্তা জহুরুল হক ও চারঘাট ফরেষ্ট রেঞ্জার এ বি এম আবদুল্লাহ প্রমখ উপস্থিত ছিলেন সবাই।

সাধারণত আমাদের ওয়েব সাইটে আপনারা জানতে পারবেন বিভিন্ন্ প্রকার টিপস,যেমন মোবাইলের টিপস,সাস্থ্য টিপস,ইন্টার নেট টিপস ,ফেসবুক টিস,আরটিকেল টিপস,জানতে চাইলে আরও পোষ্ট দেখুন এখানে ক্লিক করে

উপজেলা কৃষি অফিসার শফিউল্লাহ সুলতান বলেন – ৩৮ টি আম গাছে পাখি বাসা বেধে আছে।সেই আম বাগানের সম্ভাব্য দাম ও পরিচর্যা ব্যায় নিরুপণ করে ক্ষতির পরিমান নির্ধারণ নিয়ে একটি প্রতিবেদন দেয়া হয়। সেই নিদের্শক্রমে অনুমতি পেলে টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়।
এলাকাটি অভয়ারণ্য ঘোষনা করা হলে ,বাগান মালিক ও বাগানের ইজারাদের ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে আগামী ৪০ দিনের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে রাজশাহীর জেলা প্রশাসক ও বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নিরদেশ দেওয়া হয়।

অথিতির পাখির কিছু কথা ও ইতিহাস আমরা আগে থেকে কিছু হলেও জেনছি: হাজার হাজার মাইল পথ পারি দিয়ে প্রতিবছর শীতকালে বিভিন্ন স্থান থেকে অনেক অথিতি পাখি আমাদের এই বাংলাদেশে আশ্রয়ের সন্ধানে আসে।এই সব পাখি একদিকে যেমন আমাদের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বরধিত করে ,অন্য দিকে প্রকৃতির ভারসাম্য ঠিক রাখার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।আমরা যেন অথিতিদের সঙ্গে সৌহার্দ পূর্ণ আচরণ করি।তেমনি এই পাখি গুলো আমাদের অথিতি বলে এদের সাথেও আমাদের সৌহার্দ পূর্ণ আচারণ করা দরকার।

তাই শীতের অথিতি পাখিদের সংরক্ষন ব্যাপারে আমাদের সচেতন হওয়া খুবই দরকার।

সরকারি চাকরি ও বেসরকারি চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি জানতে চাইলে এখানে ক্লিক করে বিস্তারিত দেখুন…..

বাংলালিংক ৩৪৯ টাকার ৩০ জিবি ৩০ দিন মেয়াদ সবাই পাবে যতবার ইচ্ছে

Hello friends, how are you all!

Hope everybody is well and Eid is over for you. Today is a great new offer for you, especially for those who want to use the monthly pack or for those who are using the monthly pack. This is a great surprise offer.

Basically, it cannot be called an offer because it is applicable to all Bengali users. So everyone can take it and take it as many times as they want.

Banglalink Monthly Internet Pack at 349 Taka 30 GB 30 days validity to launch this offer or by recharging 349 Taka in any way you will get 30 GB internet which will be valid for 30 days.

There is no way to activate this package by dialing.
So you must recharge 349 rupees.

To check balance dial * 5000 * 500 #

Stay tuned to our website for more new information.

হেলো বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই !

আশাকরি সবাই ভালোই আছেন আর ঈদ আপনাদের আনন্দতেই কেটেছে ।আজ আপনাদের জন্য নতুন একটি গুরুত্বপূর্ন অফার নিয়ে হাজির হলাস বিশেষ করে যারা মাসিক প্যাক ব্যবহার করতে চান তাদের জন্য বা মাসিক প্যাক ব্যবহার করে আরছেন তাদের জন্য একটি বড় চমক অফার এটি।

মূলত এটিকে একটি অফার বলা চলে না কারণ এটি বাংলালিক সকল ইউজারদের জন্য প্রযোজ্য। তাই এটি সবাই নিতে পারবেন আর যত বার ইচ্ছে নিতে পারবেন।

 

বাংলালিংক ৩৪৯ টাকার ৩০ জিবি ৩০ দিন মেয়াদ সবাই পাবে যতবার ইচ্ছে

 

বাংলালিংক মাসিক ইন্টারনেট প্যাক ৩৪৯ টাকায় ৩০ জিবি ৩০ দিন মেয়াদের এই অফারটি চালু করতে বিকাশ কিংবা যে কোন ভাবে ৩৪৯ টাকা রিচার্জ করলে পেয়ে যাবেন ৩০ জিবি ইন্টারনেট যার মেয়াদ থাকবে ৩০ দিন ।

এই প্যাকেজটি ডায়েল করে এক্টিভ করার কোন উপায় নেই ।
তাই আপনাকে অবশ্যই ৩৪৯ টাকা রিচার্জ করতে হবে।

ব্যালেন্স চেক করতে ডায়াল *৫০০০*৫০০#

আরও নতুন নতুন তথ্য জানতেআমাদের ওয়েব সাইটের সাথে থকুন

 

কি কি যোগ্যতা প্রয়োজনে ফেসবুক ব্লু টিক মার্ক পেতে ? লাইক এবং ফলোয়ার ছাড়াই কিভাবে ব্লু ব্যাজ পাওয়া যায়?

কি কি যোগ্যতা প্রয়োজনে ফেসবুক ব্লু টিক মার্ক পেতে?লাইক এবং ফলোয়ার ছাড়াই কিভাবে ব্লু ব্যাজ পাওয়া যায়?

আমাদের কারই বা ইচ্ছা করে না নিজের প্রফাইল বা পেইজে ব্লু টিক মার্ক পেতে?এমন প্রশ্ন করা হলে সবার উত্তরই হ্যা হবে। কিন্তু এটার যেমন চাহিদা তেমনি পযোজন কঠিন শর্ত মানা।যেখানে আপনাকে সমাজে সুপরিচিত কোন ব্যাক্তি হতে হবে। যাকে একটা কমিউনিটি চিনে বা তার সম্পকিত অনেক তথ্য জানার জন্য সার্চ করে বা তাকে অনুসরণ করতে চায়।(কিন্তু ফেসবুক সেলিব্রিটি নয়! বাস্তব জবিনের সেলিব্রিটি হতে হবে)এছাড়াও নিচের কয়েকটি সর্ত তুলে ধরা হলো

১. পরিচিত কোন ইউনিক রিয়েল ব্র্যান্ড
২. সরকারি প্রতিষ্ঠান কর্তৃক অনুমোদিত বা রেজিস্টার্ড কোম্পানি
৩. সরকারি ট্যাক্স দাতা হতে হবে প্রতিষ্ঠানটিকে ব্যাক্তির ক্ষেত্রে তার প্রোফাইল বা পেইজে তার সম্পকে তথ্য থাকতে হবে।
কিন্তু সবার আগে একটা প্রশ্ন হচ্ছে ভাই ইদানিং দেখা যাচ্ছে অনেকের পেইজ বা প্রোফাইল ব্লু টিক মার্ক।যেখানে পেজে লাইক মাত্র ৫০০ থেকে ৬০০ বা প্রফাইলে ফলোয়ার সংখ্যাও কম তারাও কিভাবে ব্লু ব্যাজ পেল?

শুনুন ভাই ব্লু ব্যাজের জন্য লাইক বা ফলোয়ার গুরুত্বপূর্ণ নয়। বরং আপনাদের আপনাদের নিজের পেশাকে বেশি গুরুত্ব দেয়া দরকার।

এখন আপনি ভাবতে পারেন যারা এত কম লাইক নিয়ে ব্লু ব্যাজ পেয়েছেন তারা এমন কি? আমি এবাপারে দেখলাম যে তারাই অনেকেই স্পটিফাইয়ের ভেরিফাইয়ের আটিস্ট যে কারণে তারা ফেসবুকে সহজেই একজন আটিস্ট হিসাবে ব্লু ব্যাজ পাচ্ছে। এবং এই ব্লু ব্যাজের জন্য এপ্লাই করার আগে তাদের পুরো তথ্য উইকিপিডিয়া সহ বিভিন্ন নিউজ পোর্টালে সেয়ার করা হচ্ছে।এবং এসব দিক দেখেই তাদের ব্লু ব্যাজ দেয়া হচ্ছে ফেসবুক থেকে।

এখন আপনারা যদি মনে হয় আপনি ব্লু ব্যাজ পাওয়ার যোগ্য তাহলে নিচের লিংকে গিয়ে ফেসবুক ব্লু ব্যাজের জন্য আবেদন করতে পারেন।

ফেসবুক ব্লু ব্যাজের জন্য আবেদন লিং 

পরবর্তী পোষ্ঠের দেখাবো কিভাবে সম্পর্ন সঠিক ভাবে ফেসবুক ব্লু ব্যাজের জন্য আবেদন করতে হয়।

সবাইকে ধন্যবাদ।

soure link

বিস্তারি জানতে আমাদের ওয়েব সাইটের সাথে যুক্ত থাকুন।

JNEWS ওয়ার্ডপ্রেস প্রিমিয়াম থিমটি ফ্রিতে ডাউনলোড করে নিন। 59$ ডলারের থিম

[ad_1]

আসসালামু ওয়ালাইকুম। আশা করছি আপনার সকলেই ভালো আছে। অনেক দিন পর হাজির হলাম আপনাদের সামনে। আজকেই এই পোস্টে আমি আপনাদের নিকট Jnews Theme শেয়ার করব যেটি আপনি একদম ফ্রিতেই ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। এই থিমটির মূল দাম ৫৯ ডলার। যা প্রায় অনেকটাই।

৫৯ ডলারের থিম একদম ফ্রিতে? আপনার মনে হতে পারে এটি ক্রাক বা নাল থিম। কিন্তু আসলে তা নয়। এটি GPL ভার্সন। আপনারা অনেকেই মনে করে Gpl আর Crack/Null একই জিনিস। কিন্তু আসলে তা নয়। এই নিয়ে পরবর্তীতে একটি টিউন পাবলিশ করার চেস্টা করব।

এই থিমটি আমি অরিজিনাল অথরের কাছ থেকে ডাউনলোড করে নিয়েছি। তাই এখানে কোন ভাইরাস নেই। অরিজিনাল অথরের কাছ থেকে ডাউনলোড করার প্রমাণটা আপনাদেরকে আগে দিয়ে নেই!!

License Certificate

LICENSE CERTIFICATE: Envato Elements Item
=================================================
This license certificate documents a license to use the item listed below
on a non-exclusive, commercial, worldwide and revokable basis, for
one Single Use for this Registered Project.

Item Title:                      JNews - WordPress Newspaper Magazine Blog Theme
Item URL:                        https://elements.envato.com/jnews-wordpress-newspaper-magazine-blog-theme-LSUG8QF
Item ID:                         LSUG8QF
Author Username:                 jegtheme
Licensee:                        Guddu Roy
Registered Project Name:         TuneBN.COM
License Date:                    February 24th, 2021
Item License Code:               ZSTKGL7CJD

The license you hold for this item is only valid if you complete your End
Product while your subscription is active. Then the license continues
for the life of the End Product (even if your subscription ends).

For any queries related to this document or license please contact
Envato Support via https://help.elements.envato.com/hc/en-us/requests/new

Envato Elements Pty Ltd (ABN 87 613 824 258)
PO Box 16122, Collins St West, VIC 8007, Australia
==== THIS IS NOT A TAX RECEIPT OR INVOICE ====

লাইসেন্স সার্টিফিকেট দেখেই বুঝতে পেরেছে এটি কোন ক্রাক বা নাল থিম নয়। তাই কোন প্রকার দ্বিধা ছাড়া আপনার ওয়েবসাইটে ব্যবহার করতে পারেন।

নোটঃ লাইসেন্স সার্টিফিকেটে যে লাইসেন্স কোড দেওয়া হয়েছে তা থিম একটিভ করার জন্য নয়। GPL ভার্সনে অটো আপডেট পাবেন না। একটিভেশন শুধু অটো আপডেট পাওয়ার জন্য।

তবে, যাই হোক এবার আসি টেমপ্লেটটি ডাউনলোড করা নিয়ে। তবে বলে নিতে চাই, ডাউনলোড লিংকটা Indirect। আশা করছি আপনার কোন সমসস্যা হবে না। এই Indirect লিংক থেকে ডাউনলোড করাটাকে ডনেশন মনে করতে পারেন।

আর ইন্টারনেটে যেগুলো থিম পাবেন সেগুলো বেশিরভাগই ক্রাক ও ভাইরাস যুক্ত। আর এই থিম ব্যবহার করে আপনার সাইটের যদি কোন সমস্যা হয় তবে তার রিস্ক আমি নেব।

তো চলেন টেমপ্লেটটি ডাউনলোড করে নেওয়া যাক!!

এই ছিল আজকের টিউন। আশা করছি ভালো লেগেছে। JNews ছাড়াও আরো অনেক থিম আমার অরিজিনাল অথরের কাছ থেকে পার্সেস করা আছে তার মধ্যে কিছু উল্লেখযোগ্য হচ্ছে –

  • NewspaperX
  • Jannah
  • GenaratePress
  • ZoxNews

ইত্যাদি। এছাড়াও আরো কিছু থিম ও প্লাগিন বিভিন্ন সোর্স থেকে ডাউনলোড করা আছে। আপনার যদি এমন থিম আরো লাগে তাহলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমি চেস্টা করব আপনাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।


আপনিই কি একজন বেকার? চাকরি খুঁজছেন? তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্য – সাপ্তাহিক চাকরির খবর এই পোস্টটিকে আমরা প্রতি সপ্তাহে আপডেট করে এবং চাকরির খবর দিয়ে থাকি।



[ad_2]
Source link

গুগলের যত ফেইল প্রোজেক্ট । পর্ব ১

[ad_1]

গুগল, নামটা শুনে নাই এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মনে হয় সোনার হরিণ খুঁজে পাওয়ার থেকেও কঠিন। আমাদের প্রত্যেকের জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে আছে এই অসাধারণ শব্দটি। প্রাত্যাহিক জীবনে যখন ই আমরা কোন কিছু খুঁজি কিংবা কোন ভিডিও দেখি কিংবা যে ফোন ইউজ করি তার সবকিছুর সঙ্গে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ ভাবে জড়িয়ে আছে গুগল।

গুগলের রয়েছে ইউটিউব, জিমেইল, সার্চ ইঞ্জিন সহ আরো অনেক অনেক প্রোডাক্ট বা প্রোজেক্ট। কিন্তু এত এত সফলতার ভিড়ে গুগলের ও রয়েছে বেশ কিছু ফেইল প্রোজেক্ট। যেগুলো বেশ কিছুদিন পাবলিক সার্ভিস দিলেও শেষ অবধি হারিয়ে গেছে এই বিশাল জগতে।

আজকে এমন ই কিছু ফেইল প্রোজেক্ট নিয়ে কথা বলব। চলুন শুরু করা যাক

Google Plus | Wikipedia
Google Plus | Wikipedia

 

১। গুগল প্লাস

গুগল প্লাস নিশ্চয় দেখেছেন কিংবা হয়ত ব্যবহার ও করেছেন। গুগল প্লাস, ফেসবুক-টুইটার এর মতোই একটি সোশ্যাল মিডিয়া ছিল। কিন্তু ২০১১ সাল থেকে ২০১৯ সাল অবধি ৮ বছরেও এর জনপ্রিয়তা ফেসবুক ইউটিউব এর ধারে কাছেও যায় নি। এছাড়া ছিল অনেক মেজর সিকিউরিটি ইস্যু। শেষ অবধি ২০১৯ সালে এসে গুগল এটির সার্ভিস অফ করে দেয়।

Google Video | Wikipedia
Google Video | Wikipedia

২। গুগল ভিডিও

২০০৫ সালের কথা, যখন ইউটিউব বেশ জনপ্রিয় এবং ভিডিও সার্ভিস এর শেয়ার এ ভাগ বসাতে সে সময় গুগল নিয়ে আসে “গুগল ভিডিও” যা ইউটিউব এর মতোই ভিডিও হোস্ট সার্ভিস। কিন্তু সেরকম সাড়া না পাওয়ায় “গুগল ভিডিও” কে বিদায় জানিয়ে ইউটিউবকে কিনে নেয় গুগল।

Google Answer | Screenshot
Google Answer | Screenshot

 

৩। গুগল এনছার

আমরা এখন যেমন গুগল এ যে কোন প্রশ্ন খুঁজি এবং বেশিরভাগ সময় নানান ধরনের উত্তর পায়। অনেক সমস্যা পোহাতে হয় সঠিক টি বেছে নিতে। ঠিক এই সমস্যা সমাধানের জন্য গুগল নিয়ে আসে “গুগল এনছার” যেখানে আপনি একটা প্রশ্ন করে সেই প্রশ্নের জন্য নির্দিষ্ট ফি বরাদ্দ করবেন এবং ঐ বিষয়ক রেজিস্টার্ড কোন গবেষক আপনার উত্তর দিয়ে দিবে। কিন্তু পর্যাপ্ত ইউজার না থাকায় গুগল এই সেবাকে ২০০৬ সালেই অফ করে দেয়।

Knol | Wikipedia
Knol | Wikipedia

 

৪। নল

২০০৮ সালে উইকিপিডিয়াকে টেক্কা দেয়ার লক্ষ্যে গুগল নিয়ে আসে তাদের মুক্ত জ্ঞান চর্চার প্লাটফর্ম “নল”। যেখানে যে কেউ রেজিস্টার করে কন্টেন্ট লিখতে পারত। কিন্তু সবাই যেহেতু উইকিপিডিয়ায় অলরেডি লিখছে এবং উইকিপিডিয়াতে রয়েছে অনেক অনেক কন্টেন্ট সেখানে নল একদম নতুন হওয়ায় তেমন কোন ইউজার ছিল না। আর এভাবেই মাত্র ৪ বছরের মাথায় ২০১২ সালে শেষ হয় নল এর আয়ু

Jaiku | Wikipedia

 

৫। জাইকু

২০০৭ সালে গুগল কিনে নেয় জাইকু কে। এটি মুলত টুইটারের মতোই একটি বিকল্প সেবা। গুগল এটার সিকিউরিটি ফোকাস করানোর জন্য এর কোডবেইজ ওপেন সোর্স করে দেয়। কিন্তু এটাও কম ইউজার এর কারণে হারিয়ে যায় এবং গুগল ২০১২ সালে এটার সেবাও অফ করে দেয়।

 

এই তো গেল গুগলের অনেক অনেক ফেইল প্রোজেক্ট এর মধ্যে থেকে খুব খুব সামান্য কিছু অংশ। সামনের পর্বে থাকবে আরো ৫ টি প্রোডাক্ট যেগুলো গুগল এর ফ্লপ প্রোডাক্ট এর মধ্যে অন্যতম।

সেই অবধি ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। যেকোন মতামত লিখুন কমেন্টে। ধন্যবাদথান,সুস্থ থাকুন। কমেন্টে জানান থাকুন, সুস্থ থাকুন। কমেন্টে জানান আপনার মতামতইবধি ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। কমেন্টে জানান আপনার



[ad_2]
Source link